সোমবার, ২২শে জুলাই, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ , ৭ই শ্রাবণ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ ||
  • প্রচ্ছদ
  • ফেনী >> ফেনী সদর
  • ফেনীতে ঠিকাদারকে অপহরণের ঘটনায় ইউপি চেয়ারম্যান গ্রেফতার
  • ফেনীতে ঠিকাদারকে অপহরণের ঘটনায় ইউপি চেয়ারম্যান গ্রেফতার

    ফেনী জেলা প্রশাসন অফিসে চৌকিদার- দফাদারদের পোশাক সরবরাহের দরপত্র জমা দিতে আসা এক ঠিকাদারকে বাধাঁদানসহ অপহরণের অভিযোগে সদর উপজেলার শর্শদী ইউপি চেয়ারম্যান জানে আলমকে গ্রেফতার করে আদালতে প্রেরণ করা হয়েছে।

    ফেনীর ডিবি পরিদর্শক নরুজ্জমান জানান, ঠিকাদার অপহরনের ঘটনায় চেয়ারম্যান জানে আলমসহ ৫ জনের বিরুদ্ধে মামলা করা হয়েছে। বৃহস্পতিবার সকালে ফেনীর বিসিক এলাকা থেকে তাকে গ্রেফতার করা হয়। এ পর্যন্ত মামলার সকল আসামী গ্রেপ্তার রয়েছে।

    অপহৃত ঠিকাদার খলিলুর রহমানের করা অভিযোগপত্রে জানা যায়, গ্রাম পুলিশের পোশাক সরবরাহের জন্য ৫৪ লাখ টাকা মূল্যের উন্মুক্ত দরপত্রে অংশ নিতে ‘মাটি আর মানুষ’ নামীয় ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠানের পক্ষে দরপত্র দাখিল করতে রোববার সকালে ডিসি অফিসে যান। এ সময় সদর উপজেলার শর্শদী ইউনিয়নের চেয়ারম্যান জানে আলম ভূঁইয়া সহ বেশকজন যুবক তাকে জোরপূর্বক অপহরণ করে একটি কমিউনিটি সেন্টারে নিয়ে তার উপর নির্যাতন চালায় এবং মোবাইল ও দরপত্র’র কাগজ কেড়ে নেয়। একপর্যায় খবর পেয়ে জেলা গোয়েন্দা পুলিশ সন্ধ্যায় কমিউনিটি সেন্টার থেকে তাকে উদ্ধার করে। পরে মামলায় চেয়ারম্যান জানে আলম ভূঁইয়া, সফিকুল ইসলাম সম্রাট, মো. সালা উদ্দিন, মো. রাসেল হোসেন, কামরুল হাসান সাব্বিরসহ অজ্ঞাত আরও ২/৩ জনকে আসামি করে মামলা করা হয়।

    গ্রেপ্তারকৃতরা হলেন, ফেনী সদর উপজেলার শর্শদী ইউনিয়ন জাহানপুরের পাটোয়ারী বাড়ির খোরশেদ আলমের ছেলে শফিকুল ইসলাম ওরফে সম্রাট (২৪), মোয়াজ্জেম বাড়ির আবুল কাশেমের ছেলে মো. সালাউদ্দিন (২০), সদর উপজেলার ধর্মপুর ইউনিয়নের জোয়ারকাছাড়ের সাহাব উদ্দিন মোল্লা বাড়ির কবির আহাম্মদের ছেলে কামরুল হাসান ওরফে সাব্বির (২৩) এবং ফেনী শহরের পূর্ব উকিলপাড়ার শাহাদাত হোসেনের ছেলে রাসেল হোসেন (২৭)।

    অপহৃত ঠিকাদার খলিলুর রহমান টাঙ্গাইলের ধরবাড়ী উপজেলার ইসপিরাজপুরের বাসিন্দা। তিনি ঢাকায় ব্যবসা করেন।

    আরও পড়ুন

    error: Please Contact: 01822 976776 !!