সোমবার, ২২শে জুলাই, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ , ৭ই শ্রাবণ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ ||
  • প্রচ্ছদ
  • ছাগলনাইয়া >> দাগনভূঞা >> পরশুরাম >> ফুলগাজী >> ফেনী >> ফেনী সদর >> সোনাগাজী
  • অনৈতিক কর্মকান্ডের অভিযোগে ফেনীর ছাগলনাইয়া থানার এস আই আলমগীর ক্লোজ
  • অনৈতিক কর্মকান্ডের অভিযোগে ফেনীর ছাগলনাইয়া থানার এস আই আলমগীর ক্লোজ

    ফেনীতে জনপ্রতিনিধি ও পুলিশের এক এসআই মিলে জোর করে নজরুল নামে এক ব্যবসায়ীর কোটি টাকার জমি, ফ্ল্যাট,ব্যাংকের চেক লিখে নেয়াসহ তার ঘরের মূল্যবান মালামাল, কাগজ পত্র তুলে নেয়ার অভিযোগ ওঠায় ছাগলনাইয়া থানার এসআই আলমগীরকে ক্লোজড করা হয়েছে।গতকাল সোমবার রাতে জেলা পুলিশ সুপার কার্যালয়ের এক নোটিশ তাকে ক্লোজ করে পুলিশ লাইনে স্থানান্তর করা হয়েছে বলে জানান ছাগলনাইয়া থানার পরিদর্শক মেজবাহ উদ্দিন।তার বিরুদ্ধে গত ১৩ সেপ্টেম্বর ঢাকা পুলিশ হেডকোয়াটার ও জেলা পুলিশ সুপার কার্যালয়ে ব্যবসায়ী নজরুল ইসলাম একটি লিখিত অভিযোগ করেন।

    অভিযোগে উল্লেখ করা হয়,আরিফিন আজাদ বাদল নামে এক ব্যবসায়ী কোন প্রমাণপত্র ছাড়া বেশকজন জনপ্রতিনিধি ও পুলিশের এস আই মিলে তার কাছে মোটা অংকের টাকা দাবী করতে থাকে। ১৭ জুন ব্যবসায়ী নজরুলের বাড়ীতে হানা দিয়ে প্রকাশ্য দিবালোকে ঘরে প্রবেশ করে পরিবারের সকলকে জিম্মি করে ঘরে থাকা ব্যবসায়িক ও জমি, ফ্ল্যাটের, গুরুত্বপূর্ণ কাগজপত্র,স্বর্ণালংকার,টিভি,ফ্রিজসহ মূল্যবান জিনিসপত্র জোর পূর্বক গাড়ীতে তুলে নিয়ে যায়।

    পরে অস্ত্র ও মাদকের মামলার ভয় দেখিয়ে ১৮ জুন ভোরে ব্যবসায়ী নজরুলকে ফের বাড়ী থেকে প্রাইভেট কারে তাকে তুলে ঢাকার কেরানীগঞ্জ সাব রেজিষ্ট্রি অফিসে নিয়ে ছাগলনাইয়া থানায় কর্মরত এস আই আলমগীর সহ তার বসুন্ধরা আবাসিক এলাকার সাড়ে ৬ কাঠার জমিটি লিখে নেয় এবং ব্যবসায়ীক লাইসেন্স হস্তান্তরের অঙ্গিকার নামা সহ ৮/১০ ব্ল্যাঙ্ক ষ্টামে সাক্ষর দিতে চাপ দেয়।সেখানে আরো অজ্ঞাত ১৫-২০ জন উপস্থিত ছিলেন।পরে কৌশলে তিনি ঘটনাস্থল থেকে সটকে পড়েন।

    পরে এস আই আলমগীর মুঠোফোনে জানায়, চুক্তি ছিলো লাইসেন্সসহ জমি লিখে নেয়া, কিন্তু ব্ল্যাংক ষ্ট্যাম্প নেয়ার যে ঘটনা ঘটেছে সেটি তিনি জানতেন না।

    ব্যবসায়ী নজরুলের এমন অভিযোগ সহ একটি কল রেকর্ড নিয়ে জেলা পুলিশ তদন্তে নামে। বিষয়টি নিয়ে বিভাগীয় তদন্ত চলছে বলে জানায় তারা।

    আরও পড়ুন

    error: Please Contact: 01822 976776 !!