শুক্রবার, ১৯শে জুলাই, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ , ৪ঠা শ্রাবণ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ ||
  • প্রচ্ছদ
  • ছাগলনাইয়া >> দাগনভূঞা >> পরশুরাম >> ফুলগাজী >> ফেনী >> ফেনী সদর >> সোনাগাজী
  • ফেনীতে করোনা উপসর্গে ৪ জনের মৃত্যু, পরীক্ষা বন্ধ তাই আক্রান্ত’র তথ্য জানছে না কেউ
  • ফেনীতে করোনা উপসর্গে ৪ জনের মৃত্যু, পরীক্ষা বন্ধ তাই আক্রান্ত’র তথ্য জানছে না কেউ

    ফেনীতে জ্বর-শ্বাসকষ্ট সহ করোনা উপসর্গ নিয়ে চারজন মৃত্যুবরণ করেছেন। মঙ্গলবার দুপুরে ও রাতে তাদের মৃত্যু ঘটে।এদেরমধ্যে দুইজন ফেনী জেনারেল হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় ও একজন বেসরকারি হাসপাতালে এবং একজন নিজ বাড়ীতে মারা গেছেন। তবে কীট সংকটে করোনা নমুনা সংগ্রহসহ পরীক্ষা বন্ধ থাকায় তাদের আক্রান্তর তথ্য জানছে না কেউ।

    ফেনী জেনারেল হাসপাতালের আবাসিক চিকিৎসক ইকবাল হোসেন জানান, রাত ১০টার দিকে নুরুল ইসলাম (৮৪) নামে এক ব্যক্তি জ্বর-শ্বাসকষ্ট নিয়ে হাসপাতালে ভর্তি হন।পরে চিকিৎসাধীন অবস্থায় কিছুক্ষণ পর তার মৃত্যু ঘটে।তিনি শহরের একাডেমি এলাকার বাসিন্দা।

    এর আগে বিরেন্দ্র বরুন (৬৫) নামে এক ব্যক্তি জ্বর-শ্বাসকষ্ট নিয়ে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মৃত্যুবরণ করেন।তিনি সোমবার দুপুরে উপসর্গ নিয়ে ভর্তি হয়েছিলেন।তার বাড়ী নোয়াখালীর সেনবাগ উপজেলায়।

    একইদিন শহরের একটি বেসরকারি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় জ্বর সর্দিকাশি শ্বাসকষ্ট উপসর্গ নিয়ে নজরুল ইসলাম (৪৫) নামে একব্যক্তির মৃত্যু হয়েছে।গত ১৪ -১৫ দিন ধরে তিনি অসুস্থতায় ভুগছিলেন। তার বাড়ী সোনাগাজী উপজেলার চর চান্দিয়া ইউনিয়নের পূর্ব বড়ধলী এলাকায়।স্থানীয় চেয়ারম্যান মো. মোশারফ হোসেন বিষয়টি নিশ্চিত করেন।

    এছাড়া দাগনভূঞা উপজেলার রাজাপুর ইউনিয়নের কামারপুকুরিয়া গ্রামের আহছান উল্যাহ (৫০) নামে এক ব্যক্তি জ্বর কাশি ও শ্বাসকষ্টসহ করোনা উপসর্গ নিয়ে মারা যান। তিনি গত কয়েক দিন ধরে জ্বর-কাশি ও শ্বাসকষ্টে ভুগছিলেন। ইউপি সদস্য নুরুল ইসলাম বিষয়টি নিশ্চিত করেন।

    ফেনী জেনারেল হাসপাতালের আবাসিক চিকিৎসক ইকবাল হোসেন প্রতিবেদক কে মুঠোফোনে জানান, কীট সংকটে গত ৫ দিন নোয়াখালী আবদুল মালেক উকিল মেডিকেল কলেজে নমুনা পরীক্ষা বন্ধ রয়েছে।পাশাপাশি উপসর্গ থাকলেও অনেক রোগীর নতুন নমুনা সংগ্রহ করা হচ্ছে না।তাই স্বাস্থ্যবিভাগের মৃত্যুর তালিকায় তাদের নাম সহ আক্রান্তের তথ্য নিশ্চিত করা যাচ্ছে না। তবে মৃতদেহ গুলো স্বাস্থ্য বিধি মেনে কবর দেওয়া ও সৎকারের জন্য স্বজনদের পরামর্শ দেয়া হয়েছে।

    আরও পড়ুন

    error: Please Contact: 01822 976776 !!