রবিবার, ১৬ই জুন, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ , ২রা আষাঢ়, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ ||
  • প্রচ্ছদ
  • ছাগলনাইয়া >> দাগনভূঞা >> পরশুরাম >> ফুলগাজী >> ফেনী >> ফেনী সদর >> সোনাগাজী
  • ফেনীর ২ টি পৌরসভাসহ ৮ টি স্থানকে ‘রেড জোন’ বিবেচনায় লকডাউন’র প্রস্তাব
  • ফেনীর ২ টি পৌরসভাসহ ৮ টি স্থানকে ‘রেড জোন’ বিবেচনায় লকডাউন’র প্রস্তাব

    করোনা ভাইরাস (কোভিড-১৯) বিস্তার রোধে ‘রেড জোন’ বিবেচনায় ফেনীর জেলার ২ টি পৌরসভাসহ আটটি স্থানকে দ্রুত লকডাউন কার্যকর করতে জেলা প্রশাসনকে প্রস্তাবনা দিয়েছে জেলা স্বাস্থ্য বিভাগ।

    সিভিল সার্জন ও জেলা করোনা প্রতিরোধ কমিটির সদস্য সচিব ডা. মো. সাজ্জাদ হোসেন জানান, অত্যাধিক ঝুঁকি বিবেচনায় ফেনী পৌরসভার রামপুর, ডাক্তার পাড়া, শান্তি কোম্পানি রোড এলাকা ও দাগনভূঁঞা উপজেলাধীন পৌরসভা, ইয়াকুবপুর, পূর্বচন্দ্রপুর, রাজাপুর ইউনিয়ন এবং ছাগলনাইয়া পৌরসভাকে লকডাউন ঘোষণার প্রস্তাব করা হয়েছে।

    জেলা স্বাস্থ্য বিভাগের তথ্যমতে, এ পর্যন্ত জেলায় ৩শ ২০ জন করোনা আক্রান্ত হন। শনাক্ত ব্যক্তিদের মধ্যে সদরের ১২৬ জন, সোনাগাজীতে ৩৯ জন, দাগনভূঞায় ৯৩ জন, ছাগলনাইয়ায় ৩৬জন, ফুলগাজীতে ৯ জন ও পরশুরামে ১০ জন রয়েছে। এদের মধ্যে সুস্থ হয়ে ৬৮ জন ও মারা গেছে ৯ জন। ৭ জন পাশ্ববর্তী চট্টগ্রাম, মিরসরাই, চৌদ্দগ্রাম ও সেনবাগের বাসিন্দা। ফেনী জেনারেল হাসপাতালে নমুনা পরীক্ষা দিয়ে আক্রান্ত হয়েছেন। আক্রান্তদের মধ্যে সরকারি কর্মকর্তা-কর্মচারী, চিকিৎসক, স্বাস্থ্যকর্মী, সদস্য, গনমাধ্যমকর্মী রয়েছেন।প্রাণঘাতী করোনা ভাইরাসে এ পর্যন্ত জেলায় মারা যাওয়া ৯ জন।

    জেলা প্রশাসক মো. ওয়াহিদুজ্জামান জানান,এখনো চিঠি পাননি তিনি।তবে মন্ত্রনালয় থেকেও ফেনীকে রেড জোন বিবেচনায় রেখেছে।তাই চিঠি পেলে সংশ্লিষ্ট দফতর গুলো একযোগ কাজ করতে সকলকে জানাতে এলাকায় এলাকায় মাইকিং করে প্রচারনা চালানোসহ লকডাউন কার্যকর করতে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে।

    আরও পড়ুন

    error: Please Contact: 01822 976776 !!