শনিবার, ২০শে জুলাই, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ , ৫ই শ্রাবণ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ ||
  • প্রচ্ছদ
  • নুসরাত হত্যাকাণ্ড >> সোনাগাজী
  • চিকিৎসক-সেবিকাসহ আরো ৪ জনের সাক্ষ্যগ্রহণ
  • চিকিৎসক-সেবিকাসহ আরো ৪ জনের সাক্ষ্যগ্রহণ

    মাদরাসা ছাত্রী নুসরাত জাহান রাফিকে যৌন নিপীড়নের আগুনে পুড়িয়ে হত্যা মামলায় চিকিৎসক-সেবিকাসহ আরো চারজন আদালতে সাক্ষ্যপ্রদান করেছেন। বৃহস্পতিবার ফেনীর নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালের বিচারক মামুনুর রশিদের আদালতে তাদে সাক্ষ্যগ্রহণ ও জেরা সম্পন্ন হয়।

    ফেনী জেলা জজ আদালতের সরকারী কৌঁসুলি পিপি হাফেজ আহাম্মদ জানান, আলোচিত নুসরাত হত্যা মামলায় এখন পর্যন্ত আদালতে ৮৪ জনের সাক্ষ্য ও জেরা সম্পন্ন হয়েছে। এ হত্যা মামলায় ৯২ জনকে সাক্ষী করা হয়েছে। বৃহস্পতিবার (আজ) ঢাকা মেডিকেল কলেজের ফরেনসিক মেডিসিন বিভাগের প্রধান ও সহযোগী অধ্যাপক ডা. সোহেল মাহমুদ, বার্ন ইউনিটের মেডিকেল অফিসার ডা. ওবায়দুল ইসলাম ও ডা. একেএম মনিরুজ্জামান এবং সিনিয়র স্টাফ নার্স অর্চনা পাল আদালতে সাক্ষ্য দিয়েছেন। পরে আসামী পক্ষের কৌঁসুলিরা তাদের জেরা করেন। আদালত আগামী ১৮ আগষ্ট মামলার পরবর্তী সাক্ষগ্রহণের দিন ধার্য করেছেন। ওইদিন চট্টগ্রাম সিআইডির সহকারী পুলিশ সুপার ও হস্তলিপি বিশেষজ্ঞ মো. শামছুল আলমের সাক্ষ্যগ্রহণের কথা রয়েছে।

    চলতি বছরের ২৭ মার্চ সোনাগাজী ইসলামিয়া ফাজিল মাদরাসার আলিম পরীক্ষার্থী নুসরাত জাহান রাফিকে যৌন নিপীড়ের দায়ে মাদরাসার অধ্যক্ষ সিরাজ উদ দৌলাকে গ্রেফতার করে পুলিশ। ৬ এপ্রিল ওই মাদরাসা কেন্দ্রের সাইক্লোন শেল্টারের ছাদে নিয়ে অধ্যক্ষের সহযোগীরা নুসরাতের শরীরে আগুন ধরিয়ে দেয়। টানা পাঁচদিন মৃত্যুর সঙ্গে লড়ে মারা যান নুসরাত জাহান রাফি।

    এ ঘটনায় নুসরাতের বড় ভাই মাহমুদুল হাসান নোমান বাদী হয়ে অধ্যক্ষ সিরাজ উদ দৌলাসহ আটজনের নাম উল্লেখ করে সোনাগাজী মডেল থানায় মামলা করেন। পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন (পিবিআই) অধ্যক্ষ সিরাজ উদ দৌলাসহ ১৬ জনের সর্বেচ্চ শাস্তি দাবী করে আদালতে অভিযোগপত্র দাখিল করেন।

    এ মামলায় মাদরাসার অধ্যক্ষ সিরাজ উদ দৌলা, নুর উদ্দিন, শাহাদাত হোসেন শামীম, উম্মে সুলতানা পপি, কামরুন নাহার মনি, জাবেদ হোসেন, আবদুর রহিম ওরফে শরীফ, হাফেজ আবদুল কাদের ও জোবায়ের আহমেদ, এমরান হোসেন মামুন, ইফতেখার হোসেন রানা ও মহিউদ্দিন শাকিল আদালতে হত্যার দায় স্বীকার করে জবানবন্দি দিয়েছেন।
    সম্পাদনা: আরএইচ/এনজেটি

    আরও পড়ুন

    error: Please Contact: 01822 976776 !!